শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ৩:১৬ pm

২৩ সেপ্টেম্বর থেকে টরন্টোতে শুরু হচ্ছে ৪র্থ মাল্টিকালচারাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

২৩ সেপ্টেম্বর থেকে টরন্টোতে শুরু হচ্ছে ৪র্থ মাল্টিকালচারাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল

মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে টরন্টো ফিল্ম ফোরাম নেতৃবৃন্দ

আগামী ২৩ থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর ছয় দিনব্যাপী টরন্টো ফিল্ম ফোরাম আয়োজিত ৪র্থ মাল্টিকালচারাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল, টরন্টো-২০২১ শুরু হতে যাচ্ছে।  করোনাজনিত কারণে এবারের চলচ্চিত্র উৎসব অনলাইন এ অনুষ্ঠিত হবে। গত ১৭ সেপ্টেম্বর, শুক্রবার ৩০০০ ড্যানফোর্থ এভিনিউ’র ৪ নং ইউনিটের টরন্টো ফিল্ম ফোরাম এর মাল্টিকালচারাল ফিল্ম স্ক্রীনিং সেন্টারে এক ‘মিট দ্য প্রেস’ এ ফোরামের সভাপাতি এনায়েত করিম বাবুল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল সম্পর্কীত বিভিন্ন বিষয় সবার সামনে উপস্থাপিত করেন।

‘মিট দ্য প্রেস’ এর শুরুতে তিনি বলেন, টরন্টো ফিল্ম ফোরাম প্রতি বছর কানাডার দ্বিতীয় প্রাচীনতম প্রেক্ষাগৃহ ২২৩৬ কুইন স্ট্রীট ইস্টের ‘ফক্স থিয়েটার’ এ মাল্টিকালচারাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল আয়োজিত করে থাকলেও এ বছরে করোনাজনিত বিধি নিষেধের কারণে এ উৎসব অনলাইনে করতে হচ্ছে। তিনি উপস্থিত সবাইকে জানান, এ বছর ১২৩টি দেশের প্রায় সাড়ে তিন হাজার প্রামাণ্য চলচ্চিত্র, স্বল্প দৈর্ঘ্য কাহিনী চলচ্চিত্র এবং পূর্ণ দৈর্ঘ্য কাহিনী ফেস্টিভ্যালে দেখানোর জন্য জমা পড়েছে। জমাকৃত চলচ্চিত্র থেকে বাছাই করে ১১০টি দেশের ৩০০টি বিভিন্ন ধরনের চলচ্চিত্র সারা বিশ্বের দর্শকদের জন্য উৎসবের ছয় দিন উন্মুক্ত থাকবে। এনায়েত করিম বাবুল উল্লেখ করেন, ছয় দিনের উৎসবের দ্বিতীয় দিন অর্থাৎ ২৪শে সেপ্টেম্বর থাকবে ‘কানাডা প্যানারোমা’ যে দিন শুধু মাত্র কানাডার ৩২টি বিভিন্ন ধরনের চলচ্চিত্র দর্শকদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

টরন্টো ফিল্ম ফোরামের সভাপতি উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানান, ছয় দিনব্যাপী এই চলচ্চিত্র উৎসবের ছবিগুলো দেখার জন্য দর্শকদের কোন অর্থ ব্যয় বা রেজিস্ট্রেশন করতে হবে না। চলচ্চিত্র উৎসবের ছবিগুলো দেখার ওয়েব সাইট লিংক এ ক্লিক করলেই যে কেউ পৃথিবীর যে কোন প্রান্ত থেকে বিশেষ দিনের চলচ্চিত্রগুলো উপভোগ করতে পারবেন।  

উল্লেখ্য, কানাডায় বসবাসরত বাংলাদেশী স্বাধীন চলচ্চিত্র নির্মাতা এবং চলচ্চিত্রপ্রেমীদের উদ্যেগে ২০১৪ সালে টরন্টোতে টরন্টো ফিল্ম ফোরাম গঠিত হয়। এই ফোরাম গঠনের একটি প্রধানতম লক্ষ্য ছিল, পৃথিবীর বহুজাতিক স্বাধীন এবং বিকল্পধারার চলচ্চিত্র নির্মাতাদের চলচ্চিত্রের প্রদর্শন করা। মাল্টিকালচারাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল আয়োজনের মধ্য দিয়ে টরন্টো ফিল্ম ফোরামের সদস্যরা মনে করেন, বহু ভাষা ও বহু জাতির মানুষের সৌহার্দ্যপূর্ণ সহাবস্থানই পারে আমাদের এই পৃথিবীকে আরও সুন্দর ও শান্তিময় করে তুলতে।

টরন্টো ফিল্ম ফোরাম এর সভাপতি এনায়েত করিম বাবুল তাঁর বক্তব্যের শেষে এই চলচ্চিত্র উৎসবের স্পন্সরদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি উল্লেখ করেন, তাঁদের সহযোগিতা ছাড়া কোনভাবেই এই উৎসব সুষ্ঠুভাবে আয়োজন করা সম্ভব হতো না। স্পন্সরদের নাম উল্লেখ করতে গিয়ে তিনি কৃতজ্ঞতা সহকারে স্মরণ করেন, ব্যারিস্টার ওমর হাসান আল জাহিদ, রিয়েল স্টেট ব্রোকার শেখ হাসিব হোসেন, মর্টগেজ ব্রোকার আসাবুদ্দিন খান আসাদ, ব্যারিস্টার চয়নিকা দত্ত, ব্যারিস্টার রিজওয়ান রহমান, মর্টগেজ ব্রোকার মোর্শেদা শরীফ,রিয়েল স্টেট ব্রোকার গৌতম পাল, রিয়েল স্টেট ব্রোকার মাসুদ গালিব, মর্টগেজ ব্রোকার অলোক চৌধুরী, আলবিয়ন বিল্ডার্সের জামাল হোসেন- ফরিদা হক এবং রাশ এর শাহিন খানকে।

ফোরামের সভাপতি ছাড়াও উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দেন সংগঠনটির কার্যকরী সদস্য ফয়েজ নুর ময়না, চলচ্চিত্র স্ক্রীনিং সম্পাদক রেজিনা রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক জগলুল আজিম রানা এবং সাধারণ সম্পাদক মনিস রফিক।

চলচ্চিত্র উৎসবের ছবিগুলো দেখার লিংক হচ্ছে : torontomulticulturalfilmfestival.com

 

Comments