শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ২:৪২ pm

দুই ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যায় ভ্যাকসিন পাসপোর্ট থেকে অব্যাহতি

দুই ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যায় ভ্যাকসিন পাসপোর্ট থেকে অব্যাহতি

সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আইজ্যাক বোগোচ

অন্টারিওতে ২২ সেপ্টেম্বর ভ্যাকসিন পাসপোর্ট চালু হওয়ার পর স্বাস্থ্যগত কারণে কেউ এ থেকে অব্যাহতি চাইলে অবশ্যই তাকে যৌক্তিক কারণ দেখাতে হবে। কেবল দুই ধরনের স্বাস্থ্য সমস্যাকে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনেশন থেকে অব্যাহতির দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে অন্টারিওর স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনে বিদ্যমান কোনো উপাদানের প্রতি কারো কোনো ধরনের অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়া থাকলে তিনি ভ্যাকসিন গ্রহণ থেকে অব্যাহতি পাবেন। তবে তা অবশ্যই একজন অ্যালার্জিস্ট অথবা ইমিউনোলজিস্টকে নিশ্চিত করতে হবে।

ভ্যাকসিন গ্রহণের আগে তাতে পলিইথাইলিন গ্লাইকল (পিইজি), পলিসরবেট ৮০ অথবা ট্রোমেথামিন উপাদান আছে কিনা তা দেখে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। কারণ, বিরল হলেও এগুলো অনেক সময় অ্যালার্জি প্রতিক্রিয়ার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

দ্বিতীয়টি হলো প্রথম ডোজ ভ্যাকসিন নেওয়ার পর কেউ যদি মায়োকার্ডাটাইটিস অথবা পেরিকার্ডাটাইটিসে আক্রান্ত হয়ে থাকেন। মায়োকার্ডাইটিস ও পেরিকার্ডাইটিস হৃদপিন্ডের এক ধরনের প্রদাহ, এমআরএনএ ভ্যাকসিন নেওয়ার কয়েকদিন পর সামান্য সংখ্যক বালক ও তরুণদের মধ্যে যা দেখা গেছে। এ ধরনের পাশর্^প্রতিক্রিয়াকে বিরল বলে উল্লেখ করেছে সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল (সিডিসি)।

সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আইজ্যাক বোগোচ শুক্রবার সিটিভি নিউজ টরন্টোকে বলেন, স্বাস্থ্যগত সমস্যার কারণে অব্যাহতির দৃষ্টিকোণ থেকে দেখলে হয় প্রথম ডোজের পর খুবই বাজে প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে অথবা ভ্যাকসিনের কোনো উপাদানের প্রতি আপনার অ্যালার্জি আছে অথবা স্বাস্থ্য সমস্যা থাকার নেতিবাচক প্রভাবের কারণে বড় ধরনের ঝুঁকি রয়েছে। এটাই হলো কথা।

কিন্তু ব্যতিক্রমগুলো অপরিবর্তনীয় কিছু নয়, যাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখছেন বিশেষজ্ঞরা। অন্টারিও মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের অ্যালার্জি সেকশনের চেয়ার ডা. মিরিয়াম হানা শুক্রবার সিটিভি নিউজ টরন্টোকে বলেন, অব্যাহতির মেডিকেল দিকটা পরিবর্তীত হচ্ছে। এ কারণে এতে স্থির থাকার সুযোগ নেই। প্রথম ডোজে পাশর্^প্রতিক্রিয়া দেখা দেওয়ায় আপনি দ্বিতীয় ডোজ নিতে পারবেনÑএমনটা বলর সুযোগ সে অর্থে নেই।

কুইনসে হেলথ নেটওয়ার্কের সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. সুমন চক্রবর্তী বলেন, আগের ভ্যাকসিনগুলোর ক্ষেত্রে তা নেওয়ার ক্ষেতে ক্রনিক কন্ডিশন যথেষ্ট কারণ ছিল। এমআরএনএ ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রে সেটা প্রযোজ্য নয়। কারণ, নন-এমআরএনএ ভ্যাকসিনের চেয়ে এর গঠন আলাদা। এমআরএনএ কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনে কোনো ভাইরাস না থাকায় পাশর্^প্রতিক্রিয়ার খুব বেশি সম্ভাবনা নেই। ভ্যাকসিনের কোনো উপাদানের পাশর্^প্রতিক্রিয়া খুবই বিরল।

 

 

Comments