শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৭:৪২ pm

রাষ্ট্রীয় মদদে বিদেশি হস্তক্ষেপ বাড়ছে

রাষ্ট্রীয় মদদে বিদেশি হস্তক্ষেপ বাড়ছে

কানাডার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় মদদপুষ্ট বিদেশি হস্তক্ষেপ বাড়ছে বলে সতর্ক করেছে দ্য কানাডিয়ান সিকিউরিটি ইন্টেলিজেন্স সার্ভিস (সিএসআইএস)। বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে সিএসআইএস বলেছে, নির্বাচনকে লক্ষ্য করে অনেক বছর ধরেই রাষ্ট্রীয় মদদে বিদেশি হুমকি আসছে। বর্তমানে এর ব্যাপকতার পাশাপাশি আরও শক্তিশালী পন্থা অবলম্বন করা হচ্ছে।
সিএসআইএসের মতে, জনমতে বিভ্রান্তি ও বিভক্তি তৈরি অথবা স্বাস্থ্যকর বিতর্কে হস্তক্ষেপের উদ্দেশে ভুল তথ্য ছড়ানো বা বিদেশি প্রভাবিত প্রচারণার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে ব্যবহার করা হচ্ছে। কানাডার নির্বাচনী ব্যবস্থা যথেষ্ট শক্তিশালী হওয়ার পরও বিদেশি হস্তক্ষেপ দেশের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলে, রাজনৈতিক ব্যবস্থা, মানবাধিকার ও বাক স্বাধীনতা এবং চূড়ান্ত বিচারে এর সার্বভৌমত্বের বিশ^াসযোগ্যতা ও সততাকে হুমকিতে ফেলে দিতে পারে।
প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো কয়েক সপ্তাহের মধ্যে কানাডিয়ানদের নতুন নির্বাচনের বার্তা দিতে পারেন, এমন সংবাদের মধ্যেই এই সতর্কতা উচ্চারণ করল গোয়েন্দা সংস্থাটি। সিএসআইএসের প্রতিবেদন বলছে, কানাডার জনগণ ও ভোটাররা বিদেশি হস্তক্ষেপের লক্ষ্যে পরিণত হতে পারেন। কারণ, তাদেরকে সবচেয়ে নাজুক লক্ষ্যবস্তু হিসেবে মনে করা হয়। বিশেষ করে নির্বাচন বিদেশিদের ভুল তথ্য প্রচার ও প্রচারণার সুযোগ করে দেয়।
ফেডারেল ব্যালটের সুরক্ষায় নিয়োজিত সিকিউরিটি অ্যান্ড ইন্টেলিজেন্স থ্রেটস টু ইলেকশন্স টাস্ক ফোর্সের সদস্য হিসেবে রয়েছে সিএসআইএস। সংস্থাটি ঠিক কোন কোনো দেশ কানাডার বিরুদ্ধে অসৎ উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করছে সেটা প্রকাশ করেনি। সুনির্দিষ্ট কোনো ষড়যন্ত্রের উল্লেখও করা হয়নি সিএসআইএসের প্রতিবেদনে। যদিও এর আগে চীন ও রাশিয়ার ব্যাপারে কানাডাকে সতর্ক করে দিয়েছিলন ফেডারেল কর্মকর্তারা। খবর: দ্য কানাডিয়ান প্রেস।

Comments