শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৬:২১ pm

করের আওতায় অব্যবহৃত বাড়ি

করের আওতায় অব্যবহৃত বাড়ি

টরন্টো মেয়র জন টরি

আবাসন বাজারের উত্তাপ কমাতে টরন্টোর অব্যবহৃত বাড়ির ওপরও কর ধার্য করা হচ্ছে। পরিকল্পনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে একটি কর পরিকল্পনা মঙ্গলবার অনুমোদনও দিয়েছে সিটি কাউন্সিলের নির্বাহী কমিটি। ২০২২ সাল থেকে কর পরিকল্পনাটি বাস্তবায়ন হবে।
এক সংবাদ বিবৃতিতে সিটি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, অব্যবহৃত বাড়ির মালিকদের দৃষ্টিভঙ্গিতে পরিবর্তন আনাই কর আরোপের লক্ষ্য। যাতে করে অব্যবহৃত বাড়িগুলো তারা ভাড়া দেন অথবা বিক্রি করেন। তাতে করে আবাসন বাজারে বাড়ির জোগান বাড়বে।
সিটি কাউন্সিলের অনুমোদন পেলে কর ব্যবস্থার সহায়তায় একটি বাইল ২০২২ সালের ১ জানুয়ারি থেকে কার্যকর হবে। প্রথম করবর্ষ হিসেবেও বিবেচিত হবে তারিখটি।
সিটি কর্তৃপক্ষের তথ্য অনুযায়ী, প্রাথমিকভাবে করের হার সুপারিশ করা হয়েছে বাড়ির বর্তমান মূল্যে ১ শতাংশ। তবে এই মুহূর্তে টরন্টোতে ঠিক কত সংখ্যক বাড়ি খালি পড়ে আছে সে তথ্য সিটি কর্তৃপক্ষের কাছে নেই। তবে ভ্যানকুভারের ট্যাক্স মেট্রিক্স ব্যবহার করে বলা যায়, নতুন আইনের ফলে বছরে ৫ কোটি ৫০ লাখ থেকে ৬ কোটি ৬০ লাখ মার্কিন ডলার আসতে পারে।
সিটি কর্তৃপক্ষ বলছে, পূর্ববর্তী বছরের ছয় মাস পর্যন্ত কোনো বাড়ি খালি পড়ে থাকলে বাড়িটিকে অব্যবহৃত বিবেচনা করা হবে। তবে কোনো বাড়ির মালিকের মৃত্যু হলে, মালিক চিকিৎসাধীন থাকলে অথবা বাড়িটির সংস্কারকাজ চললে সেগুলো এ থেকে অব্যাহতি পাবে। কর পরিকল্পনা অনুযায়ী, বাড়ির মালিকদের প্রতি বছর তাদের বাড়ির অবস্থা ঘোষণা করতে হবে। দৈব চয়ন ভিত্তিতে কিছু বাড়িতে নিরীক্ষাও চালানো হতে পারে। অনুমোদন পেলে ২০২১ সালের শেষ নাগাদ চূড়ান্ত প্রতিবেদন ও বাইল সিটি কাউন্সিলের পর্যালোচনার জন্য প্রস্তুত করা হবে।
টরন্টোর মেয়র জন টরি এক সংবাদ বিবৃতিতে এ প্রসঙ্গে বলেছেন, টরন্টোতে আবাসন বাজারে বাড়ির সরবরাহ বাড়ানো খুব বেশি প্রয়োজন এবং অব্যবহৃত বাড়ির ওপর কর আরোপের ফলে সেটি সম্ভব হবে। সুতরাং আজ এটি অনুমোদন পাওয়ায় আমি খুশি। কারণ হাজারো বাড়ি অব্যবহৃত রাখার মতো অবস্থায় আমরা নেই।

Comments