বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১, ১:০৮ pm

কোভিডমুক্ত সনদ ছাড়া কানাডায় প্রবেশ নয়

কোভিডমুক্ত সনদ ছাড়া কানাডায় প্রবেশ নয়

কোভিডমুক্ত সনদ ছাড়া কানাডায় প্রবেশ করা যাবে না। কোভিড-১৯ পরীক্ষাটি করতে হবে কানাডায় আসার তিন দিন আগে। শুধু তাই নয়, এটি হতে হবে গোল্ড স্ট্যান্ডার্ড হিসেবে পরিচিত পিসিআর টেস্ট। পরীক্ষাটি করতে হবে ফলাফল পাওয়ার অন্তত একদিন আগে। অব্যাহতভাবে বাড়তে থাকা করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে নতুন এ পদক্ষেপ নিয়েছে কানাডা।

জননিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রী বিল ব্লেয়ার বুধবার বলেন, নতুন বিধিনিষেধ সম্পর্কে নাগরিকরা যাতে জানতে পারেন সেজন্য সীমান্ত ও বিমানবন্দরগুলোতে কানাডা বর্ডার সার্ভিস এজেন্সির প্রতিনিধিদের উপস্থিতি বাড়ানো হবে। জনগণের প্রতি আমরা আবারও আহ্বান জানাচ্ছি, খুব প্রয়োজন না হলে ভ্রমণ থেকে বিরত থাকুন। আপনাকে যদি ভ্রমণ করতেই হয়, তাহলে ফেরার পর অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে এবং ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে যেতে হবে। এটাই করা উচিত, বিষয়টা তেমন নয়। এটা আইন। আর আপনি যদি এটা না মানেন তাহলে এর পরিণাম হবে ভয়াবহ।

কেন্দ্রীয় সরকারের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা খুব বেশি নমনীয় বলে সমালোচনা হওয়ার পর নতুন এ ঘোষণা এলো। এছাড়া ভ্রমণ না করার আহ্বান সত্ত্বেও ছুটিতে সেইন্ট বার্টস সফরে যাওয়ায় অন্টারিওর অর্থমন্ত্রী রড ফিলিপসের পদত্যাগের দাবিও উঠেছে।

বিল ব্লেয়ার বলেন, নতুন ভ্রমণ নীতিমালা বলবৎ হলেও ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন নিয়ম বাতিল হবে না। কোয়ারেন্টিন আইন কেউ অমান্য করলে তাকে সর্বোচ্চ ছয় মাসের জেল অথবা সাড়ে সাত লাখ ডলার জরিমানা গুণতে হবে।

তিনি বলেন, আমরা জানি স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের বারণ সত্ত্বেও কিছু কানাডিয়ান অনাবশ্যক সফরে দেশের বাইরে গেছেন। অবশ্যই তাদের দেশে ফেরার অধিকার রয়েছে। সে সঙ্গে দেশে ফেরার পর তাদের নৈতিক ও আইনগত কিছু দায়দায়িত্বও আছে। সেটা হচ্ছে কোয়ারেন্টিনে যাওয়া।

ভ্রমণ সম্পর্কিত নতুন বিধিনিষেধ পরিপালন হচ্ছে কিনা সে ব্যাপারেও তদারকি বাড়ানো হবে বলে জানান বিল ব্লেয়ার। সেটা হতে পারে ফোনের মাধ্যমে অথবা তাদের বাড়িতে গিয়ে।

এমন এক সময় নতুন এ বিধিনিষেধ ঘোষণা করা হলো যখন কানাডিয়ানরা সফর নিয়ে ব্যস্ত থাকেন। বিল ব্লেয়ার বলেন, যেহেতু শীত আসছে তাই সরকার ধরে নিয়েছে যে, সতর্কতা সত্ত্বেও অনেকে অনাবশ্যক ভ্রমণে বেরিয়ে পড়বেন। 

Comments