Thu 13th Aug 2020, 11:54 am

যেভাবে ‘কুখ্যাত সন্ত্রাসী’কে ধরল পুলিশ

যেভাবে ‘কুখ্যাত সন্ত্রাসী’কে ধরল পুলিশ

বাংলামেইল ডটকম ডেস্ক

ভারতের উত্তর প্রদেশে চলতি মাসের প্রথমদিকে আট পুলিশ সদস্যকে হত্যার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে কুখ্যাত সন্ত্রাসী বিকাশ দুবেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার সকালে মধ্য প্রদেশের উজ্জয়িনীর একটি মন্দির থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ দুটি পৃথক বন্ধুকযুদ্ধে মারা গেছেন বিকাশের দুই সহযোগী।

পুলিশ সূত্রের বরাত দিয়ে বিবিসি ও আনন্দবাজার জানায়, আজ সকালে উজ্জয়িনীর একটি মন্দিরে সকাল ৮টার দিকে বিকাশকে দেখা যায়। মন্দির চত্বরের এক দোকানদার বিকাশকে চিনতে পারেন। তিনিই মন্দিরের নিরাপত্তারক্ষীদের জানান। খবর যায় পুলিশেও। এরপর মন্দির থেকে বের হওয়ার সময় নিরাপত্তারক্ষীরা তাকে আটক করে। কিন্তু বিকাশ একটি ভুয়া পরিচয়পত্র দেখায়। কিন্তু নিরাপত্তারক্ষীরা কার্যত নিশ্চিত ছিলেন যে, ওই ব্যক্তি বিকাশই। তাই তারা বিকাশকে আটকাতেই হাতাহাতি, ধস্তাধস্তি শুরু করেন। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। মন্দিরের নিরাপত্তারক্ষীরাই তাকে আটকে রাখেন। পরে পুলিশ এলে তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। ওই মন্দিরের সিসি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়, কয়েকজন পুলিশ সদস্য ঘিরে রেখেছেন মাস্ক পরা বিকাশকে।

গত শুক্রবার ভোর রাতে বিকাশকে ধরতে তার গ্রামে গিয়ে গুলিবৃষ্টির মুখে পড়েন উত্তর প্রদেশের কানপুরের পুলিশ সদস্যরা। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় আট পুলিশকর্মীর। তারপর থেকেই বিকাশকে খুঁজছিল পুলিশ। গতকাল বুধবার হরিয়ানার ফরিদাবাদের একটি হোটেলে রয়েছে বলে জানতে পেরে সেখানে হানা দেওয়ার কিছুক্ষণ আগেই পালিয়ে যান বিকাশ। কিন্তু উজ্জয়িনীর মন্দির থেকে আর পালাতে পারল না তিনি।   

এদিকে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে আজ সকালেই মৃত্যু হয়েছে বিকাশের দুই সহযোগীর। তাদের মধ্যে প্রভাত গতকাল ফরিদাবাদের হোটেলে বিকাশকে ধরতে হানা দেওয়ার সময় গ্রেপ্তার হয়েছিল।

পুলিশ সূত্রে খবর, গ্রেপ্তারের পর প্রভাতকে কানপুরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। রাস্তায় গাড়ি দাঁড় করিয়ে টায়ার পাল্টাচ্ছিলেন পুলিশ সদস্যরা। এ সময় এক পুলিশ সদস্যের আগ্নেয়াস্ত্র ছিনিয়ে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন প্রভাত। পুলিশ পাল্টা গুলি চালালে গুরুতর জখম হন তিনি। পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে তার মৃত্যু হয়।

আবার বিকাশেরই অন্য সহযোগী প্রবীণ ওরফে বৌবা দুবের মৃত্যু হয়েছে পুলিশের সঙ্গে গুলিযুদ্ধে। উত্তর প্রদেশের এটাওয়ার কাছে আজ ভোর ৩টার দিকে একটি সুইফ‌্ট ডিজায়ার গাড়ি চুরি করে চারজন। তার প্রায় ঘণ্টাখানেক পরে পুলিশ তাদের আটকায়। পুলিশকে লক্ষ্য করে তারা গুলি চালাতে শুরু করে। পাল্টা গুলি চালায় পুলিশও। তাতে গুলিবিদ্ধ হয় ওই চারজনের একজন। পরে হাসপাতালে নিয়ে গেলে তার মৃত্যু হয়। পরে তার পরিচয় জানতে পারে পুলিশ। প্রবীণকে ধরতে ৫০ হাজার টাকার পুরস্কার ঘোষণা করেছিল পুলিশ।  - আনন্দবাজার পত্রিকা

Comments